প্রয়াত সঙ্গীতশিল্পী পঙ্কজ উধাস

সঙ্গীতজহতের গ্রহণ যেন আর কাটছে না। উস্তাদ রশিদ খানের পর ফের আরেক নক্ষত্রপতন সঙ্গীতজগতে। ৭৩ বছর বয়সে প্রয়াত হলেন সঙ্গীতশিল্পী পঙ্কজ উধাস। বেশ কয়েকদিন ধরেই বার্ধক্যজনিত রোগে ভুগছিলেন তিনি। তাঁর মেয়ে নয়াব উদাস সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন এই খবর।

সেই শোকবার্তায় লেখা, ‘দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, পদ্মশ্রী পঙ্কজ উধাস মারা গিয়েছেন। তিনি দীর্ঘ দিন অসুস্থ ছিলেন।’ তাঁর মৃত্যুর খবর এখনো বিশ্বাস করতে পারছেন না কেউই। কেবল সাধারণ মানুষই নন, তাঁর গজলের ভক্ত ছিলেন স্বয়ং সোনু নিগমও। পঙ্কজ উধাসের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন তিনিও।

১৯৫১ সালের ১৭ মে গুজরাতের জেটপুরে জন্ম পঙ্কজ উধাসের। পরিবারসূত্রেই তাঁর সঙ্গীতের হাতেখড়ি। সঙ্গীতের প্রতি উৎসাহ দেখে তাঁর বাবা তাঁকে রাজকোটের সঙ্গীত অ্যাকাডেমিতে ভর্তি করে দেন। গুলাম কাদির খানের কাছে শাস্ত্রীয় সঙ্গীতের তালিম নেন তিনি। অবশ্য পরবর্তীকালে, গোয়ালিয়র ঘরানার জনপ্রিয় শিল্পী নবরং নাগপুরকরের কাছে তালিম নিতে মুম্বই চলে যান পঙ্কজ উধাস। একটাসময় মানুষের মুখে মুখে ফিরত তাঁর গান। তাঁর বিখ্যাত অ্যালবামগুলির মধ্যে কয়েকটি হল ‘নশা’, ‘পয়মানা’, ‘হসরত’, ‘হামসফর’ প্রভৃতি। ২০০৬ সালে পদ্মশ্রী পুরস্কার পেয়েছিলেন তিনি।

চলতি বছরের জানুয়ারিতে গানের জগতে ৪০ বছর পূর্ণ হয়েছে তাঁর। আর এই বছরেই শ্রোতাদের কাঁদিয়ে চিরবিদায় নিলেন এই গজল-সম্রাট।

Author

  • Debasmita Biswas

    বেথুন কলেজ থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় স্নাতক। পড়ার নেশা ছোট থেকে, প্রাথমিকভাবে লেখালেখির শুরু শখেই। তারপর সংবাদপত্র, পত্র-পত্রিকায় সমালোচনা পড়ার অভ্যাস আর বিভিন্ন নাটক, সিনেমা দেখার পর বিশ্লেষণ করার শখ থেকেই ইচ্ছে সমালোচক হওয়ার। বিনোদনজগতের বিভিন্ন খবর করার পাশাপাশি নাটক এবং সিনেমা দেখে তার গঠনমূলক সমালোচনাও করেন তিনি।

Scroll to Top