CCL: ফাইনালে হুঙ্কার বাংলার বাঘেদের, ট্রফি যীশুদেরই

সেলিব্রিটি ক্রিকেট লীগের ফাইনাল ছিল গতকাল। আর তাতেই কর্ণাটক বুলডোজারের মত শক্তিশালী প্রতিপক্ষকে ধরাশায়ী করল বেঙ্গল টাইগার্স। ট্রফির সঙ্গে জিতে নিল দর্শকদের মনও।

গত ২৩শে ফেব্রুয়ারি শুরু হয়েছিল এই টুর্নামেন্ট। তার আগে, গত ২রা ফেব্রুয়ারি, দুবাইয়ের বুর্জ খলিফায় প্রথম বাঙালি হিসেবে দেখা গিয়েছিল অভিনেতা যীশু সেনগুপ্তের ছবি।

তাই তারকাদের ক্রিকেট লীগ নিয়ে উন্মাদনা ছিল তুঙ্গে। আর সেই উন্মাদনার মান রাখলেন যীশু অ্যান্ড কোং। শনিবার, সেলিব্রিটি ক্রিকেট লীগের ফাইনাল ম্যাচে, ১৩ রানে কর্ণাটককে পরাজিত করলেন তাঁরা।

জ্যামি ব্যানার্জী এবং রাহুল মজুমদারের খেলা গতকাল মুগ্ধ করেছে দর্শকদের। এবারের টুর্নামেন্টে ‘বেস্ট ব্যাটসম্যান অফ দ্য ফাইনাল’-এর পাশাপাশি ‘ম্যান অফ দ্য সিরিজ’-এর শিরোপাও পান বাংলার রাহুল মজুমদার। ‘প্লেয়ার অফ দ্য ফাইনাল’ হয়েছেন অভিনেতা জ্যামি ব্যানার্জী।

দশ-দশ ওভারে ভাগ করে দুই ইনিংসের এই খেলায়, প্রথম ইনিংসে ১১৮ রান তুলেছিল বাংলা। তার জবাবে প্রথম ইনিংসে মাত্র ৮৬ রান করেছিল কর্ণাটক। দ্বিতীয় ইনিংসে বাংলা তুলেছিল ১০৫ রান, কিন্তু সেই রান তাড়া করে জিততে পারেনি কর্ণাটক বুলডোজার।

গোটা টুর্নামেন্টে কর্ণাটককে একবারও হারাতে পারেনি বাংলা। তাই গতকালের ম্যাচ নিয়ে আশঙ্কা ছিলই। সেই আশঙ্কার মেঘ কাটিয়ে আবেগের বৃষ্টিতে ভেসেছে গোটা টলিউড ইন্ডাস্ট্রি। গৌরব চক্রবর্তী থেকে দর্শনা বণিক, শুভেচ্ছা জানিয়েছেন সকলেই।

২০১২ সালে সফর শুরু করে, প্রথমবারের জন্য ট্রফি হাতে তুললেন যীশুরা। তাই তারপরে, অভিনেতা আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছেন স্বাভাবিকভাবেই।

Author

  • Debasmita Biswas

    বেথুন কলেজ থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় স্নাতক। পড়ার নেশা ছোট থেকে, প্রাথমিকভাবে লেখালেখির শুরু শখেই। তারপর সংবাদপত্র, পত্র-পত্রিকায় সমালোচনা পড়ার অভ্যাস আর বিভিন্ন নাটক, সিনেমা দেখার পর বিশ্লেষণ করার শখ থেকেই ইচ্ছে সমালোচক হওয়ার। বিনোদনজগতের বিভিন্ন খবর করার পাশাপাশি নাটক এবং সিনেমা দেখে তার গঠনমূলক সমালোচনাও করেন তিনি।

Scroll to Top