তিনে পা ‘4th Bell’-এর নাট্যোৎসবের, রয়েছে চমক

থিয়েটারপ্রেমীদের কাছে ‘ফোর্থ বেল’ সত্যিই একটা আকর্ষণীয় নাম। ২০১০ সালে তাঁদের উত্থানের সময় থেকেই দর্শকদের মুগ্ধ করছেন তাঁরা। সম্প্রতি তৃতীয় নাট্যোৎসবের কথা ঘোষণা করল নাট্যগোষ্ঠী ‘ফোর্থ বেল’।

গত দু’বছরের মত, এবছরেও তাঁরা এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন। চারদিনের এই নাট্যোৎসব শুরু হতে চলেছে আগামী ১২ই এপ্রিল, চলবে ১৫ই এপ্রিল পর্যন্ত। জ্ঞানমঞ্চে আয়োজন করা হয়েছে এই অনুষ্ঠানের।

রজত গাঙ্গুলী, স্নেহা চ্যাটার্জী, অর্ক মুখার্জী, তিমির বিশ্বাস-সহ বিনোদন জগতের বহু নামজাদা ব্যক্তিত্ব অংশগ্রহণ করবেন এই অনুষ্ঠানে। অনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করবেন প্রতীক দত্ত এবং অঙ্কিতা মাঝি।

এবারে নান্দীকার, কাঁচড়াপাড়া কৃষ্টি, কল্যাণী নাট্যচর্চা কেন্দ্র ও শান্তিপুর রঙ্গপীঠের মত চার-চারটি সম্মানীয় নাট্যগোষ্ঠী একটি করে নাটক প্রযোজনা করতে চলেছে এই নাট্যোৎসবে।

এবারের নাট্যোৎসবে কী কী নাটক করছেন আমন্ত্রিত নাট্যগোষ্ঠীরা? জানা গিয়েছে, আগামী ১২ই এপ্রিল দেখা যাবে ‘নান্দীকার’-এর ‘লক্ষ্মণের শক্তিশেল’। আগামী ১৩ই এপ্রিল ‘কাঁচড়াপাড়া কৃষ্টি’র হাত ধরে মঞ্চস্থ হবে ‘ফেনিল’।

আগামী ১৪ই এপ্রিল ‘কল্যাণী নাট্যচর্চা কেন্দ্র’ অভিনয় করবে ‘মহালয়া’। শেষদিন, অর্থাৎ আগামী ১৫ই এপ্রিল, ‘হাঁসখালির হাঁস’ নাটকটি প্রযোজনা করতে চলেছে ‘শান্তিপুর রঙ্গপীঠ’ নাট্যগোষ্ঠী।

পরপর চারদিন ‘ফোর্থ বেল’ নাট্যগোষ্ঠী স্বয়ং প্রযোজনা করবে আরো চারটি নাটক (বঙ্কুবাবুর বন্ধু, Hapi-D, Vote দিন এবং Chorus)। তারমধ্যে ‘Vote দিন’ নাটকটি নতুন, এবং সুমিত কুমার রায়ের উদ্যোগে ‘Hapi-D’ নাটকটি মঞ্চে ফিরছে এক দশকেরও বেশী সময়ের পর।

সোহিনী সেনগুপ্ত এবং চপল ভাদুড়িকে ‘ফোর্থ বেল সম্মান’-ও দেওয়া হবে এই মঞ্চে। তাছাড়াও প্রথমবর্ষের মত এবারেও, তরুণ প্রতিভাদের উৎসাহ দিতে, অনূর্ধ্ব-২৫ শিল্পীদের নিয়ে একটা ‘ক্যাম্পাস থিয়েটার প্রতিযোগিতা’র আয়োজনও করেছেন তাঁরা।

‘71/1 MB’-র তরফ থেকে ‘ফোর্থ বেল’-এর অনিন্দ্য সাঁইয়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ‘দ্বিতীয় বছর আমরা এই প্রতিযোগিতাটার আয়োজন করে উঠতে পারিনি। প্রথম বছরের পরে এবার আবার এটা হচ্ছে।

তৃপ্তি মিত্র অডিটোরিয়ামে আমরা প্রিলিমস করেছি। সেখান থেকে চারটে দলকে বেছে নেওয়া হয়েছে। ১৪ তারিখ জ্ঞানমঞ্চে সকাল দশটা থেকে প্রতিযোগিতার ফাইনাল রাউন্ড হবে।’ বিচারকের আসনে থাকছেন সুরঞ্জনা দাশগুপ্ত, শুভাশিস মুখার্জী, অঙ্কিতা মাঝি এবং দেবেশ চট্টোপাধ্যায়ের মত ব্যক্তিত্বরা।

এর আগে ২০১৫ সালে ‘নান্দীকার থিয়েটার উৎসব’ এবং ২০১৬ সালে ‘বহির্বঙ্গ নাট্যোৎসব’-এ আমন্ত্রণ করা হয়েছিল ‘ফোর্থ বেল’ নাট্যগোষ্ঠীকে। ২০১৭ সালের ‘Stagecraft Awards – Best Theatre Production’ অনুষ্ঠানে ‘ছাড়পত্র’ নাটকের জন্য সেরার শিরোপা পেয়েছিলেন তাঁরা।

বরাবরই নানাধরনের পরীক্ষামূলক কাজ করে আসছে ‘ফোর্থ বেল’। অতিমারির পরে যখন থিয়েটার জগত ফের গুছিয়ে নিচ্ছে নিজেকে, ঠিক সেই সময়ে যুবসমাজের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করার চেষ্টায় নামেন তাঁরা।

চারদিনব্যাপী এই মহোৎসবের সংবাদে স্বাভাবিকভাবেই খুশী থিয়েটারপ্রেমীরা। এইধরনের উদ্যোগের হাত ধরেই দিনদিন আরো প্রাসঙ্গিক হয়ে উঠুক থিয়েটার।

Author

  • Debasmita Biswas

    বেথুন কলেজ থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় স্নাতক। পড়ার নেশা ছোট থেকে, প্রাথমিকভাবে লেখালেখির শুরু শখেই। তারপর সংবাদপত্র, পত্র-পত্রিকায় সমালোচনা পড়ার অভ্যাস আর বিভিন্ন নাটক, সিনেমা দেখার পর বিশ্লেষণ করার শখ থেকেই ইচ্ছে সমালোচক হওয়ার। বিনোদনজগতের বিভিন্ন খবর করার পাশাপাশি নাটক এবং সিনেমা দেখে তার গঠনমূলক সমালোচনাও করেন তিনি।

Scroll to Top