Prabhat Roy: হাসপাতালে প্রভাত রায়, কেমন আছেন এখন?

হাসপাতালে ভর্তি পরিচালক প্রভাত রায়। গতকাল, সামাজিক মাধ্যমে একটি পোস্টে একথা জানান, তাঁর ‘মেয়ে’ একতা ভট্টাচার্য। কী হয়েছে তাঁর?

একতা জানিয়েছেন, শ্লেষ্মাজনিত অসুস্থতা নিয়েই দিনছয়েক আগে M. R. Bangur হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিলেন পরিচালক। সঙ্গে যোগ দিয়েছিল শ্বাসযন্ত্রের সমস্যাও। তাছাড়া কিডনির সমস্যা, ক্রিয়েটিনিনের অনিয়ন্ত্রিত বৃদ্ধি, সবকিছু নিয়েই জর্জরিত ছিলেন তিনি। সম্প্রতি তাঁর মেডিকেল টিমের পরামর্শে তাঁকে উডল্যান্ডস হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়েছে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, শ্বাসকষ্ট, বুকে জল জমা, বুকে সংক্রমণ এবং ক্রিয়েটিনিনের অনিয়ন্ত্রিত বৃদ্ধির মত সমস্যা নিয়ে গত ১৯শে ফেব্রুয়ারি ভর্তি হয়েছেন তিনি। ড. সুরেশ চোরারিয়া, ড. জয়ন্ত বসু, ড. সুস্মিতা দেবনাথ এবং ড. প্রসূন মিত্রের অধীনে চিকিৎসা চলছে তাঁর।

গতকাল, ২১শে ফেব্রুয়ারি, দক্ষ ও অভিজ্ঞ চিকিৎসকদের তত্ত্বাবধানে প্রথমবার ডায়ালিসিস করা হয়েছে পরিচালক প্রভাত রায়ের। জানা গিয়েছে, বর্তমানে ভাল আছেন বর্ষীয়ান এই পরিচালক।

একসময়ে বাঙালি চলচ্চিত্রপ্রেমীদের ‘লাঠি, ‘শ্বেতপাথরের থালা’, ‘প্রতিকার’, ‘পাপী’, ‘প্রতীক’-এর মত ছবি উপহার দিয়েছিলেন তিনি। তবে স্ত্রীকে হারিয়ে, বেশ কিছুদিন ধরেই লোকচক্ষুর অন্তরালে হারিয়ে গিয়েছিলেন তিনি। অবসাদ গ্রাস করেছিল তাঁকে। ২০১৯-’২০ সাল নাগাদ একতার সঙ্গে আলাপ হয়ে তাঁর। তার কিছুদিন পর থেকেই ফের জীবনমুখী হয়ে ওঠেন একতার ‘বাবি’। সম্প্রতি একতার লেখা একটি অ্যাডফিল্মের চিত্রনাট্য ও সংলাপ লিখেছেন প্রভাত রায়। আগামী ৭ই মার্চ আসতে চলেছে তাঁর আত্মজীবনী ‘ক্ল্যাপস্টিক’। 71/1 MB-কে একতা জানিয়েছিলেন, ‘দু’জনে মিলেই চলছে লেখালেখির কাজ। বাবির ইচ্ছে ছিল যদি বই বেরোয়, তাহলে সেটা যেন আমি লিখি।’

অসুস্থতার জন্য কি পিছিয়ে যাবে আত্মজীবনী মুক্তি পাওয়ার দিন? একেবারেই না। একতা জানিয়েছেন, ‘ক্ল্যাপস্টিক’ নিয়ে পরিচালকের মধ্যে যথেষ্ট উত্তেজনা রয়েছে। তাই এখনো বইটির মুক্তির তারিখ পিছোনোর কথা একেবারেই ভাবেননি তাঁরা। চলচ্চিত্রপ্রেমীদের কামনা, মুক্তির তারিখ পিছোনোর কথা যেন একেবারেই না ভাবতে হয় তাঁদের। তাড়াতাড়ি সেরে উঠুন প্রভাত রায়, তাঁর প্রতি মানুষের ভালবাসাকে আরো একবার জিতিয়ে দিন তিনি।

Author

  • Debasmita Biswas

    বেথুন কলেজ থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় স্নাতক। পড়ার নেশা ছোট থেকে, প্রাথমিকভাবে লেখালেখির শুরু শখেই। তারপর সংবাদপত্র, পত্র-পত্রিকায় সমালোচনা পড়ার অভ্যাস আর বিভিন্ন নাটক, সিনেমা দেখার পর বিশ্লেষণ করার শখ থেকেই ইচ্ছে সমালোচক হওয়ার। বিনোদনজগতের বিভিন্ন খবর করার পাশাপাশি নাটক এবং সিনেমা দেখে তার গঠনমূলক সমালোচনাও করেন তিনি।

Scroll to Top