Suchitra Sen: প্রথমবার বিদেশের মাটিতে মহানায়িকার চলচ্চিত্র উৎসব

মৃত্যুর পর পেরিয়ে গিয়েছে দশবছর, অভিনয় থেকে অবসর নেওয়ার পর আরো বেশী। তবু বাঙালি দর্শকের মন থেকে তাঁর ছাপ মুছে যায়নি একচিলতেও। আর তারই প্রমাণ দিল মহানায়িকাকে নিয়ে আয়োজিত আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। আমেরিকার নিউ ইয়র্কে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে এই উৎসব।

১৯৩১ সালে বাংলাদেশের পাবনায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন অভিনেত্রী। আর গত শনিবার, মহানায়িকার এই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের কথা প্রথম ঘোষণা করা হয় বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাতেই। ‘Suchitra Sen Memorial USA’-এর উদ্যোগে অনুষ্ঠানটি আয়োজিত হবে আগামী এপ্রিল মাসে। সম্প্রতি কলকাতায় সেই বিষয়ে একটি সাংবাদিক সম্মেলন সংঘটিত হয়েছে। সেই সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঋতুপর্ণা সেনগুপ্ত, রেশমী মিত্রসহ তারকারা।

প্রথম ভারতীয় অভিনেত্রী হিসেবে আন্তর্জাতিক পুরস্কার অর্জন করেছিলেন মহানায়িকাই। আরো বেশ কিছু পুরস্কার রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। স্বর্ণযুগের ছবিতে তাঁর উপস্থিতিই ছিল বাঙালি দর্শকদের হৃদস্পন্দন বাড়িয়ে দেওয়ার অন্যতম কারণ। প্রায় ছাব্বিশবছরের দীর্ঘ কেরিয়ারজীবনে বহু ‘হিট’ ছবি উপহার দিয়েছিলেন মহানায়িকা। ১৯৭৮ সালে বাংলা ছবির জগৎ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিলেও, তাঁকে ঘিরে দর্শকদের কৌতূহল বজায় রয়েছে এখনো। সেই ভালবাসা, আবেগের জায়গা থেকেই আয়োজন করা হচ্ছে এই অনুষ্ঠানের। তবে কেবল বাঙালির আবেগ নয়, বাংলা ছবির বিশ্বায়নও ঘটবে এই উদ্যোগে।

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যেই মহানায়িকা-অভিনীত ছবি বাছাইয়ের কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। সুচিত্রা সেনের জন্মদিন, অর্থাৎ আগামী ৬ এপ্রিল পর্যন্ত ছবি জমা দেওয়া যাবে। কোনো ভারতীয় নায়িকাকে নিয়ে কোনো চলচ্চিত্র উৎসব এর আগে বিদেশের মাটিতে আয়োজিত হয়নি। এই প্রথম মহানায়িকার হাত ধরে আয়োজিত হতে চলেছে এই অনুষ্ঠান। সেই সঙ্গে অনেকটাই বেড়ে যেতে চলেছে বাংলা ছবির পরিসর।

Author

  • Debasmita Biswas

    বেথুন কলেজ থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় স্নাতক। পড়ার নেশা ছোট থেকে, প্রাথমিকভাবে লেখালেখির শুরু শখেই। তারপর সংবাদপত্র, পত্র-পত্রিকায় সমালোচনা পড়ার অভ্যাস আর বিভিন্ন নাটক, সিনেমা দেখার পর বিশ্লেষণ করার শখ থেকেই ইচ্ছে সমালোচক হওয়ার। বিনোদনজগতের বিভিন্ন খবর করার পাশাপাশি নাটক এবং সিনেমা দেখে তার গঠনমূলক সমালোচনাও করেন তিনি।

Scroll to Top