আকাশ আটের ‘রাঁধুনি’ এবার বাসবদত্তা!

বিনোদন জগতের চ্যানেলগুলির মধ্যে একটা বড় নাম ‘আকাশ আট’। আর দুপুরে কাজের ফাঁকে, কি খাওয়াদাওয়ার সময়ে, বহু মানুষ চোখ রাখেন এই চ্যানেলের পর্দায়। দেখেন তাঁদের প্রিয় শো ‘রাঁধুনি’।

গত ১৮ই মার্চ থেকেই সামান্য বদল ঘটেছে তাঁদের অভ্যাসে। অনুষ্ঠানের সঞ্চালিকা হিসেবে তাঁরা পাচ্ছেন জনপ্রিয় দুই আরজে দেবী সাহা এবং শ্রী বসুকে। আর এবার, স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতেই দর্শকদের আরো একটা সারপ্রাইজ দিল আকাশ আট। এবার থেকে আরজে দেবী এবং আরজে শ্রী-র সঙ্গে, সঞ্চালিকার ভূমিকায় দেখা যাবে, টলিপাড়ার জনপ্রিয় অভিনেত্রী বাসবদত্তা চট্টোপাধ্যায়কেও।

টেলি থেকে টলি – বাসবদত্তা সফল সবক্ষেত্রেই। রান্না করতে বেশ ভালবাসেন তিনি। এবার তাঁর মুকুটে জুড়তে চলেছে এক নতুন পালক। স্বাভাবিকভাবেই বেশ উচ্ছ্বসিত অভিনেত্রী। তিনি জানিয়েছেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে চলা রান্নার শো-গুলোর মধ্যে ‘রাঁধুনি’ অন্যতম। সেই শোয়ের সঙ্গে যুক্ত হওয়াটা আমার জন্য সম্মানের। সঞ্চালিকা হিসেবেই আমি নিজের কেরিয়ার শুরু করেছিলাম। আর ১৩ বছর পর আবার সেই শিকড়ে ফিরে যাওয়া এই শোয়ের হাত ধরে। আকাশ আটের গোটা টিম আমায় যেভাবে সাহস যুগিয়েছে, ওঁদের সক্কলকে ধন্যবাদ।’

২০০৮ সাল থেকে সম্প্রচারিত হচ্ছে এই শো। সম্প্রচারিত হয়েছে পাঁচ হাজারেরও বেশী পর্ব। পম্পি মুখার্জীর পরিচালনায় ২০২১ সালে, ‘Woman Times Magazine’ আয়োজিত একটি অ্যাওয়ার্ড-গিভিং অনুষ্ঠানে, ‘সবচেয়ে বেশীদিন ধরে চলা রান্নার শো’-এর শিরোপা পায় ‘রাঁধুনি’। আকর্ষণীয় উপস্থাপনভঙ্গিতে বরাবরই দর্শকদের মুগ্ধ করে এই শো।

চ্যানেলের পরিচালক শ্রীমতী প্রিয়াঙ্কা সুরানা বরদিয়া বলেন, ‘আকাশ আট সবসময়েই দর্শকদের জন্য নতুন নতুন বিনোদনের অনুষ্ঠান নিয়ে আসে। নতুন সঞ্চালিকা হিসেবে আরজে দেবী এবং আরজে শ্রী-র সঙ্গে বাসবদত্তাকে পেয়ে আমরা খুবই খুশী।’

খাদ্যরসিকদের জন্য এক অন্যরকম শো ‘রাঁধুনি’। বিভিন্নধরনের ঘরোয়া খাবারের অন্যরকম রেসিপির সমাহার এই শো। টিনসেল টাউনের বহু জনপ্রিয় মুখই এই শো সঞ্চালনা করেছেন, এসেছেন বিশেষ অতিথি হয়েও। কেবল খাদ্যরসিকদের নয়, রান্না করতে যাঁরা ভালবাসেন, তাঁদের দক্ষতা প্রদর্শনের এক মঞ্চ ‘রাঁধুনি’।

প্রতি সপ্তাহে সোমবার থেকে রবিবার দুপুর দেড়টায় সম্প্রচারিত হয় এই শো।

Author

  • Debasmita Biswas

    বেথুন কলেজ থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় স্নাতক। পড়ার নেশা ছোট থেকে, প্রাথমিকভাবে লেখালেখির শুরু শখেই। তারপর সংবাদপত্র, পত্র-পত্রিকায় সমালোচনা পড়ার অভ্যাস আর বিভিন্ন নাটক, সিনেমা দেখার পর বিশ্লেষণ করার শখ থেকেই ইচ্ছে সমালোচক হওয়ার। বিনোদনজগতের বিভিন্ন খবর করার পাশাপাশি নাটক এবং সিনেমা দেখে তার গঠনমূলক সমালোচনাও করেন তিনি।

Scroll to Top