‘ওয়েব সিরিজ করলেই বোল্ড সিন দিতে হবে?’, সরব চুমকি চৌধুরী

একসময়ের দাপুটে অভিনেত্রী চুমকি। বাবা অঞ্জন চৌধুরীর ছবিতে পরপর করতেন অভিনয়। তারপরেই লাইট-ক্যামেরা-অ্যাকশনের সঙ্গে একটা বড় বিচ্ছেদ।

হঠাৎই কেন হারিয়ে গিয়েছিলেন তিনি ইন্ডাস্ট্রি থেকে? ‘71/1 MB’-র তরফ থেকে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে অভিনেত্রী জানান, ‘টুকটাক কাজ করলেও ২০০৩ সালের পর তেমনভাবে আর কাজ করিনি আমি। আসলে আমি অত বেশী কাজ করতে ভালবাসি না। বাড়ীতে থাকতেই ভালবাসি। তাছাড়া আমার বাড়ীতেও দু’তিনটে দুর্ঘটনা ঘটে গেল, অনেক প্রিয় মানুষদের হারিয়েছি। তাই কাজ না করে বাড়ীতেই থাকতাম।’ গত জানুয়ারিতে মাত্র ৪৪ বছর বয়সে আচমকা প্রয়াত হল চুমকি চৌধুরীর ভাই সন্দীপ। তার তিনমাস আগেই তিনি হারিয়েছিলেন মা’কে। স্বভাবতই, একেবারে ভেঙে পড়েছিলেন চুমকি।

তবে পরিবারের কথাতেই আবার কাজে ফিরেছেন অভিনেত্রী। সম্প্রতি ‘Sun Bangla’ চ্যানেলের ‘দ্বিতীয় বসন্ত’ ধারাবাহিকে নায়িকার শাশুড়ির চরিত্রে অভিনয় করছেন তিনি। নতুন এই কাজেও, একেবারেই নষ্ট হয়নি ‘মেজবউ’য়ের শান্ত-মিষ্টি ভাবমূর্তি। এই চরিত্রেও বৌমার পাশে থেকে, দর্শকদের মন কেড়েছেন তিনি।

অভিনয় করার পাশাপাশি কী ধরনের ছবি দেখতে ভালবাসেন চুমকি? ‘71/1 MB’-কে চুমকি জানিয়েছেন, ‘সাদা-কালো ছবির সময়ে আমি কাজ করিনি। তবে এখন দেখলে বুঝি তার আলো, তার কাজ অন্যরকম ছিল। ভীষণ ভাল লাগে সেগুলো।’ বাবা অঞ্জন চৌধুরী ছিলেন একসময়ের জনপ্রিয় পরিচালক। পরিবারের সকলে একসঙ্গে বসে দেখত তাঁর ছবি। তবে এখন অনেকটাই কমে গেছে সেসব। এসেছে ওটিটি। তা নিয়ে অভিনেত্রী বলেন, ‘বাংলা ছবিতে এখনো যদি ভাল গল্প দেওয়া যায়, এখনো হলে গিয়ে দেখবেন দর্শক। আমি নিজে ‘প্রজাপতি’ ছবিটা হলে গিয়ে দেখেছি।’

সাম্প্রতিককালের ওটিটি নিয়েই বা কী মত তাঁর? চুমকি জানান, ওটিটি নিয়ে তেমন আগ্রহ নেই তাঁর। ‘কয়েকটা ছাড়া বেশীরভাগ গল্পই ভাল লাগেনি আমার। যেগুলো দেখেছি, সেগুলোও সবার সঙ্গে বসে দেখার মত নয়, তাতে এত বোল্ডসিন রয়েছে। ওদের মাথার মধ্যে ঢুকে গেছে ওয়েবসিরিজ করলেই বোল্ডসিন দিতে হবে। গল্পটা হয়ত ভাল, কিন্তু সবার সঙ্গে বসে দেখা যায় না।’

বহুদিন পর অভিনয়ে ফিরলেও কাজ করে বেশ খুশী চুমকি। সেটের সবার সঙ্গেই বন্ধুর মতই মিশে গেছেন তিনি। বিশেষত, সেটের দুই খুদের সঙ্গে ভীষণই জমে গিয়েছে তাঁর রসায়ন। নতুন এই ধারাবাহিকের হাত ধরে তাঁর দ্বিতীয় ইনিংস কেমন হয়, এখন সেটাই দেখার।

 

 

Author

  • Debasmita Biswas

    বেথুন কলেজ থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় স্নাতক। পড়ার নেশা ছোট থেকে, প্রাথমিকভাবে লেখালেখির শুরু শখেই। তারপর সংবাদপত্র, পত্র-পত্রিকায় সমালোচনা পড়ার অভ্যাস আর বিভিন্ন নাটক, সিনেমা দেখার পর বিশ্লেষণ করার শখ থেকেই ইচ্ছে সমালোচক হওয়ার। বিনোদনজগতের বিভিন্ন খবর করার পাশাপাশি নাটক এবং সিনেমা দেখে তার গঠনমূলক সমালোচনাও করেন তিনি।

Scroll to Top