“হুব্বা কো পাকাড়না মুশকিল হি নেহি…. ”হুগলির কুখ্যাত “ডন” হুব্বা শ্যামল এর জীবনী এবার বড় পর্দায়..

বিশ শতকের শেষ আর একবিংশের  প্রথম দশকে যার নাম শুনে ভয়ে কাপত গোটা হুগলি তথা গোটা বাংলা, সেই  শ্যামল দাস ওরফে হুব্বা শ্যামল এর জীবন কাহিনী বড় পর্দায় ফুটিয়ে তুলতে চলেছেন ব্রাত্য বসু।গত ২১ শে ডিসেম্বর,হুব্বা ছবিটির ট্রেলার মুক্তি পাবার পর থেকেই সাড়া ফেলে দিয়েছে দর্শক মহলে। ছবি টির মুখ্য, হুব্বা শ্যামল এর চরিত্রে রয়েছেন বাংলাদেশের বিখ্যাত শিল্পী মোশারফ করিম।

ত্রিশের ও বেশি খুনের মামলা তার নামে, মাদক প্রচার সহ আরো হাজারো বেআইনি কাজে তার হাত। একটা সময় “হুগলির দাউদ ইব্রাহিম” বলা হত এই হুব্বা শ্যামল কে। এরম একটা চরিত্র এবং তার অপরাধ জগৎ  কত টা ভালো ভাবে ফুটিয়ে তুলতে পারবেন ব্রাত্য বসু এবং তার দল, সেটাই দেখবার বিষয়। যদিও মোশারফ করিম এর অভিনয় দক্ষতা নিয়ে খুব একটা প্রশ্ন তোলেন না সিনেমা প্রেমীরা।ট্রেলার প্রকাশ এর সথে সাথেই সিনেমার অশ্লীল ডায়ালগ, ব্যাক গ্রাউন্ড মিউজিক, হালকা হাসি ঠাট্টার স্যাথে সিরিয়াস টোনের মেলবন্ধন মন কেড়ে নিচ্ছে দর্শক এর।

যদিও এটা মোশারফ করিম এর ব্রাত্য বসুর সাথে প্রথম কাজ না, এর আগেও ব্রাত্য বসুর ডিকশনারি ছবিটিতে  মোশারফ একটি গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করেছিলেন, এই দুই এর যুগলবন্দী নতুন ম্যাজিক তৈরি করতে পারে কিনা সেটাই দেখার। মোশারফ এর সাথে মুখ্য ভূমিকায় থাকতে চলেছেন ইন্দ্রনীল সেনগুপ্ত । তিনি তদন্তকারী পুলিশ অফিসার এর ভূমিকা পালন করছেন।

ব্রাত্য বসু এর আগের ছবি – মায়ার জঞ্জাল, ঝরা পালক, ডিকশনারি, বারান্দা,এই ছবি গুলি সমালোচক দের খুব এই ভালো লাগলেও, বক্সঅফিসে ভালো পারফর্ম করতে পারেনি। দেখা যাক হুব্বা সমালোচক দের সাথে সাথে দর্শকদেরও টানতে পারে কিনা! যদিও বিশেষজ্ঞ রা আশাবাদী, কারণ এরম প্রাপ্ত বয়স্ক দর্শক দের জন্য বাংলা সিনেমা খুব একটা আসেনা বড় পর্দায়।

সম্প্রতি কলে আমরা দেখেছি হিন্দি সিনেমা, অন্যান্য আঞ্চলিক সিনেমা, এমন কি কিছু বাংলা সিনেমাও চেষ্টা করছে কে জি এফ, পুষ্পা, বিক্রম, এরম দক্ষিণী সিনেমা গুলোর সাকসেস পর্মুলা নকল করে মশলা সিনেমা বানাতে। এরম একটা জায়গায় দাঁড়িয়ে ব্রাত্য বসুর এর প্রচেষ্টা আসার আলো দেখায়।

Author

Scroll to Top