মুক্তি পেয়েছে ‘ও অভাগী’র প্রথম গান, আসছে আরো চার

আগেই জানা গিয়েছিল, শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের লেখা ছোটগল্প ‘অভাগীর স্বর্গ’ অবলম্বনে একটি চলচ্চিত্র বানাতে চলেছেন পরিচালক অনির্বাণ চক্রবর্তী। ছবির পোস্টার-লঞ্চের সংবাদও আপনাদের জানিয়েছিল ‘71/1 MB’। এবার সম্প্রতি, গত ৭ই মার্চ মুক্তি পেয়েছে ছবির প্রথম গান।

ছবির মিউজিক লঞ্চ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ছবির অভিনেতা-অভিনেত্রীসহ সকল কলাকুশলীরা। আরো অনেক বিখ্যাত ব্যক্তিত্বেরও দেখা মিলেছে এই অনুষ্ঠানে। যেকোনো ছবির টাইটেল ট্র্যাকের প্রতি শ্রোতাদের একটা আকর্ষণ থাকে বরাবরই। এ ছবির প্রথম গান হিসেবে তাই শ্রোতাদের মনে নিজের জায়গা করে নিয়েছে টাইটেল ট্র্যাক ‘ও অভাগী’।

ছবির সঙ্গীত পরিচালনা করছেন মৌসুমী চ্যাটার্জী। পরিচালক অনির্বাণ চক্রবর্তীর লেখা এই গান শোনা যাচ্ছে অনিমেষ রায়ের কণ্ঠে। সঙ্গে ফুটে উঠেছে, অভাগী-কাঙালি এবং অন্যান্যদের দৈনন্দিন জীবনের টুকরো কিছু দৃশ্য।

অনিমেষ রায়ের কণ্ঠে প্রথম গান মুক্তি পাওয়ার পাশাপাশি জানা গিয়েছে, এ ছবিতে গান গাইতে চলেছেন লগ্নজিতা চক্রবর্তী, রূপঙ্কর বাগচী, চন্দ্রাণী ব্যানার্জী এবং অনির্বাণ রায় আকাশ। বাকি চারটি গানের মধ্যে তিনটির কথা লিখেছেন বলাই চট্টোপাধ্যায়। টাইটেল ট্র্যাকের মতই আরো একটি গানের কথা লিখেছেন পরিচালক অনির্বাণ চক্রবর্তী।

ছবির মুখ্য চরিত্র অভাগীর ভূমিকায় দেখা যাবে দুই বাংলার জনপ্রিয় অভিনেত্রী রাফিয়াদ রশিদ মিথিলাকে। তাঁর পুত্র, কাঙালীর চরিত্রে অভিনয় করবেন সৌরভ হালদার। অভাগীর স্বামী রসিক বাঘের চরিত্র ফুটিয়ে তুলবেন সায়ন ঘোষ। গল্পের মতই এ ছবির মধ্য দিয়ে ফুটে উঠবে ছয়-সাতের দশকের গ্রাম-বাংলার প্রতিচ্ছবি।

নিম্নবিত্ত, নীচুজাতের স্বামী-পরিত্যক্তা এক মহিলা অভাগী। কিন্তু ছোটবেলায় গ্রামের এক যাত্রাপালায় যমরাজকে দেখে ভারী ভাল লেগেছিল তার। কিন্তু তার মৃত্যুর পরে, দাহের কাঠ জোগাড় করতে পারে না কাঙালি। সকলের কাছে তাকে শুনতে হয়, ‘নীচুজাতের মড়া’ পোড়ানোর দরকার হয় না, কবর দিলেই যথেষ্ট। সারাজীবন যে আগুনের স্বপ্ন দেখেছিল অভাগী, সে আগুন জ্বলতে থাকে তার বালক ছেলের চোখে।

পরিচালনার পাশাপাশি এই ছবির চিত্রনাট্য লিখেছেন পরিচালক অনির্বাণ। তিনি বলেন, ‘শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের প্রতিটা গল্প-উপন্যাসই যেন সিনেমার চিত্রনাট্য, আর সেজন্যই উনি আমার প্রিয়। মূল লেখায় যেসকল চরিত্র আছে, তাদের সঙ্গে আরো কিছু নতুন চরিত্র যোগ করা হয়েছে। মূল গল্পের নির্যাসটা নষ্ট না করে, নতুনধরনের কিছু বানানোটাই ছিল একটা চ্যালেঞ্জ।’ আসলে সতী হওয়ার বাসনা আর সমাজের জাতিভেদের এক অসম যুদ্ধ ফুটে উঠবে এই ছবিতে।

মিথিলা, সায়ন আর সৌরভ ছাড়াও, সুব্রত দত্ত, দেবযানী চট্টোপাধ্যায়, ঈশান মজুমদার, জিনিয়া পাণ্ডে, কৃষ্ণ ব্যানার্জীকে দেখা যাবে এই ছবিতে। ছবির ক্যামেরার দায়িত্বে থাকছেন মলয় মণ্ডল, সম্পাদনার দায়িত্ব থাকছে সুজয় দত্তরায়ের হাতে। ‘স্বভূমি এন্টারটেইনমেন্ট’ নিবেদিত, প্রবীর ভৌমিক প্রযোজিত এই ছবিটি বড়পর্দায় মুক্তি পেতে চলেছে আগামী ২৯শে মার্চ।

Author

  • Debasmita Biswas

    বেথুন কলেজ থেকে উদ্ভিদবিদ্যায় স্নাতক। পড়ার নেশা ছোট থেকে, প্রাথমিকভাবে লেখালেখির শুরু শখেই। তারপর সংবাদপত্র, পত্র-পত্রিকায় সমালোচনা পড়ার অভ্যাস আর বিভিন্ন নাটক, সিনেমা দেখার পর বিশ্লেষণ করার শখ থেকেই ইচ্ছে সমালোচক হওয়ার। বিনোদনজগতের বিভিন্ন খবর করার পাশাপাশি নাটক এবং সিনেমা দেখে তার গঠনমূলক সমালোচনাও করেন তিনি।

Scroll to Top